এনামুল হক শামীমঃ আপাদমস্তক রাজনীতিকের সাফল্য

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও  ছাত্রলীগের অন্যতম সাবেক সফল সভাপতি একেএম এনামুল হক শামীম। বর্তমান সরকারের পানি সম্পদ উপমন্ত্রী। মন্ত্রণালয়ের অফিসার থেকে শুরু করে মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের মধ্যে কাজের সমন্বয় করাই যেন তাঁর দায়িত্ব। এই বর্ষায় সারা দেশে যখন বন্যার পদধ্বনি শোনা যাচ্ছে ঠিক তখন তিনি সারা দেশে পাউবোর প্রতিটি ডিভিশনের খবর রাখছেন।

ছাত্রলীগের সভাপতি থাকাকালীন সংশ্লিষ্ট সকলের সঙ্গে সমন্বয়ের যে অভ্যাস গড়ে উঠেছিল তাইই এখন কাজে লাগছে। এখানেই আপাদমস্তক রাজনীতিকের সাফল্য।

এনামুল হক শামীম পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের জঞ্জাল পরিষ্কারে ব্যাপক সংষ্কারমূলক কর্মসূচীর সূচনা করেছেন যা ইতিমধ্যেই ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে শুরু করেছে। তাঁর কাছে বিবেচনার জন্য আনীত প্রতিটি বিষয়ে তিনি স্বল্প সময়ে সিদ্ধান্ত দিয়ে থাকেন। এতে করে যে কোন সমস্যার সমাধান হচ্ছে অতি দ্রুততায়। পাউবোর অফিসারদের সাথে আলাপ কালে জানা যায়, আগে একটি প্রকল্প পাশ করাতে মন্ত্রণালয়ে বারবার লেফটরাইট করতে হতো। এতে প্রচুর শ্রম ঘন্টা নষ্ট হতো। বর্তমানে উপমন্ত্রীর ওয়ান স্টপ সার্ভিসের কারণে প্রকল্প গ্রহণ, প্রকল্প পাশ, অর্থ মঞ্জুরী এবং বাস্তবায়ন সহজতর হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর উদার সহযোগিতা এবং মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের কর্মনিষ্ঠা এক্ষেত্রে শক্তপোক্ত টিম ওয়ার্ক হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার আলোকে হাওড় অঞ্চলের ফসল রক্ষায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ব্যাপক সাফল্য দেখিয়েছে। আম্ফান বিধ্বস্ত বাঁধ মেরামতে যুগান্তকারী প্রকল্প গৃহীত হচ্ছে।

আম্ফান বিধ্বস্ত বাঁধসহ সারাদেশের বিদ্যমান বাঁধ মেরামত ও সংস্কারে একটি পিএমপি প্রকল্পের কার্যক্রম চলছে পাউবোর মনিটরিং সেল ও পরিকল্পনা সেলের মাধ্যমে। এই প্রস্তাবিত প্রকল্প যথাযথ ভাবে বাস্তবায়িত হলে সারা দেশের বাঁধগুলো ঝুঁকিমুক্ত হতে পারে। এই পিএমপি প্রকল্প বাস্তবায়নে মাত্র তিন হাজার ছয়শো কোটি টাকার প্রয়োজন হবে বলে প্রস্তাবপত্রে উল্লেখ আছে। যেহেতু এনডিআর এর বরাদ্দ দিয়ে বাঁধগুলো মেরামত করা অসম্ভব সেহেতু প্রস্তাবিত পিএমপি প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের মানুষকে সুরক্ষা দেয়া যেতে পারে।

অভিজ্ঞমহল মনে করেন, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের বর্তমান প্রতিমন্ত্রীর সততা, পানি সম্পদ উপমন্ত্রীর দক্ষতা এবং সিনিয়র সচিবের সার্বক্ষনিক মনিটরিং পানি সেক্টরের ভাবমূর্তি উজ্জ্বলের পাশাপাশি জনগণের দুঃখ-কষ্ট লাঘবে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে সরকারের সুনাম বৃদ্ধি পেতে পারে।

এসএইচ/ এমটি