জনগনের ভালোবাসায় ধন্য হও ছাত্রলীগ

আজিজুর রহমান বাবু: ছবির ধান কাটার এই কৃষাণকে ভালো করে দেখুন! ধানের গোছা গুলো সব এক সমান করে সাজাতে পারেনি, তবুও কেটেছে। তারপরও ভোর সকালে তার অনুসারীদের নিয়ে ধান কাটতে নেমে গেছে, সূর্যের তাপ আবার রমজান মাস, মহামারী করোনার কারণে কৃষকেরা ধানকাটার শ্রমিক নেই, এই মহৎ প্রানের মানুষগুলো সবাই মিলে কৃষকের ঘরে ধান তুলে দিচ্ছে।

অভিনন্দন তোমাদের এই দেশপ্রেম
আপনি কী ভাবতে পারেন? এইসব উদীয়মান সুশিক্ষিত বিবেকবান তরুনদের বাংলা ভাষার কোন বিশেষণে বিশেষায়িত করা যায়? আমরা বাঙ্গালীরা ভালো কাজের ইতিবাচক কথা কম বলি, নেতিবাচক কথা বলে অভ্যস্ত কিন্তু ছবিগুলো দেখে কী আপনার মনটাকে একটুও আন্দোলিত করবে না? আমার দেশের ছেলেদের এইরুপ কর্মকান্ডে আপনার বুক কী গর্ব অনুভব করবে না? জি, অবশ্যই করবে। সাব্বাস বলে পিঠ বুলিয়ে দেবেন আরও কত কিছু করতে চাইবেন।

এদের হাতে বাঁচবে দেশ, গড়বে সোনার বাংলাদেশ

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক বিজ্ঞান উপ বিষয়ক সম্পাদকের ইকবাল সিকদার শিপনের কথাই বলছিলাম। আমি ওদের পরিবারে সাথে ৩৮ বছর ধরে সংপৃক্ত, সেই ছোট দেখে আসছি, জীবনে ধান খেতে গেছে কিনা সন্দেহ। বাবা জাতীয় বীর হাবীবুর রহমান সিকদার বীর মুক্তিযোদ্ধা, চরভাগা ইউপির বার বার নির্বাচিত চেয়ারম্যানের সুযোগ্য কনিষ্ঠ সন্তান, প্রকৌশল বিদ্যা চর্চিত ছাত্র ইকবাল সিকদার শিপন। তার লেখাপড়া, খাওয়া-দাওয়া, আর মায়ের আচল ধরে ঘুরে বেড়ানোই ছিলো নিত্য দিনে কর্ম।

আজ সময়ের প্রয়োজনে ঘুরে দাড়িয়েছে। মাথায় গামছা বেধে নেমে পড়েছে কৃষকের দুঃখ মোছাতে। বাহ্ চমৎকার বিবেকবোধ। ঐতিহ্যবাহি কেন্দ্রীয় ছাত্র লীগের তরুণ উদিয়মান ছাত্রনেতা, রক্তে রয়েছে জনসেবার অদম্য নেশা।

মাননীয় পানিসম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম সাহেবের বিশ্বাসভাজন কর্মঠ কর্মী ইকবাল সিকদার শিপন, যার জনগনের ভালোবাসা আর সন্মান প্রাপ্তি ছাড়া গায়ে নেই কোন কলংকে দাগ, নেই অন্যায় অসততার ছায়া। এরাইতো দেশ আর জাতির গর্বিত সন্তান। বর্তমান প্রজন্ম নির্দ্বিধায় মেনে নেবে এবং আগামীর ভবিষ্যৎ নেতা হওয়ার যোগ্যতা হিসেবে ঐক্যমত পোষণ করতে জনমত গড়ে তুলবে।

তরুণ আশীর্বাদপুষ্ট ছাত্র নেতার জন্য রইলো প্রানঢালা অভিনন্দন। জনগনের ভালোবাসায় ধন্য হও ছাত্রলীগ।