ঝুঁকিপূর্ণ জায়গার খবরে তাৎক্ষণিকভাবে বাঁধ এলাকা পরিদর্শনে উপমন্ত্রী শামীম

নিজস্ব প্রতিবেদক: শরীয়তপুর সুরেশ্বরের দরবার শরীফ বাঁধ এলাকার প্রায় ২০০ মিটার নদীভাঙ্গনে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে পরিদর্শন করলেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম,এমপি।

সোমবার (২০ জুলাই) সকালে নড়িয়ায় পদ্মার ডান তীর সংরক্ষণ কাজের এই ঝুঁকিপূর্ণ অংশ পরিদর্শন করেন শরীয়তপুর-২ আসনের সাংসদ ও পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম।

উপমন্ত্রী বলেন, নড়িয়ায় সার্ভে করে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গা চিহ্নিত করা হচ্ছে। গতকাল খবর পেলাম এই জায়গাটা ঝুঁকিপূর্ণ, তাই পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডিজাইন চীফসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে পরিদর্শন করলাম। এর সমাধানে এখানে বসেই পরিকল্পনা করা হয়েছে এবং নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। নড়িয়াকে ঝুঁকিমুক্ত রাখতে আমাদের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নির্দেশনাসহ যা যা সম্ভব সবই করবো।

এ সময় পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মোতাহের হোসেন, প্রধান প্রকৌশলী তোফায়েল আহমেদ, চীফ ডিজাইন হারুন, প্রকল্প পরিচালক আব্দুল হেকিম, নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম আহসান হাবীব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এক প্রশ্নের উত্তরে উপমন্ত্রী আরও বলেন, বন্যা ও বর্ষাকে সামনে রেখে আগাম প্রস্তুতি লক্ষ্যে আমরা করোনা সঙ্কটেও কাজ অব্যাহত রেখেছি। বন্যা আঘাতের পর থেকে জেলা প্রশাসকসহ মাঠ পর্যায়ে আমাদের সকল কর্মকর্তাদের সাথে নিয়মিত কথা বলেছি। তারা জেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে মানুষের পাশে থেকে কাজ করছে।

পরিদর্শন শেষে নড়িয়া উপজেলা ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপমন্ত্রী শামীম বলেন, মানবতার নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে মন্ত্রীপরিষদসহ সকল নেতাকর্মী মানবতার পাশে কর্মীর মত কাজ করে যাচ্ছে। পানি এখন কমতে শুরু করবে। নদীভাঙ্গন-বন্যার্তদের পাশে আমরা ছিলাম, এখনো আছি। তারেক জিয়া লন্ডনে বসে আছে, তারা দুর্যোগে মানুষের পাশে নাই।

নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়ন্তী রূপা রায়ের সভাপতিত্বে এই অনুষ্ঠানে প্রায় ৫ শতাধিক পরিবারের মাঝে শুকনা খাবারসহ প্রায় ৬০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়। এখানে আরো উপস্থিত ছিলেন নড়িয়া পৌরসভার মেয়র শহিদুল ইসলাম বাবু রাড়ি, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান খোকন মোল্লা, সিনিয়র সহ-সভাপতি ফজলুল হক মাল, সহ-সভাপতি বাদশা শেখ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল হক সিকদার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির বেপারি ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা মোস্তফা প্রমুখ।

এসএইচ/ এমটি