বই মেলায় আসছে সামিয়া পূর্ণিয়ার “হলদে রোদ ও মেয়েটা”

প্রকৃতির বৈচিত্রতাকে রুপকের ভেতর দিয়ে মানব-মানবির প্রেম এবং বিচ্ছেদ ও নস্টালজিয়ার নানাবিধ টানাপোড়েনের প্রকাশ ঘটেছে পূর্ণিয়া সামিয়ার (সামিয়া সিদ্দিকী পূর্ণিয়া) প্রথম কাব্যগ্রন্থ “হলদে রোদ ও মেয়েটা”।

বইটিকে প্রকাশ করেছে নৈঋতা ক্যাফে। “অমর একুশে গ্রন্থ মেলা ২০২০” মেলা প্রাঙ্গনের ৪৮৩ নং স্টলে কাব্যগ্রন্থটি পাওয়া যাবে।

এবার ঢাকা আন্তর্জাতিক একুশে গ্রন্থমেলা শুরু হবে ২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ অনুষ্ঠিত হবে।

“হলদে রোদ ও মেয়েটা” বইয়ের সংক্ষিপ্ত কথা
স্বাভাবিক ও বাস্তব অভিজ্ঞতাগুলোকে তুলে আনার আপ্রাণ চেষ্টা রয়েছে। দুটি কবিতার শিরোনাম নিয়ে গ্রন্থটির নামকরণ করা হয়েছে। প্রথম ভাগে পাওয়া যাবে প্রকৃতির বৈচিত্র্যতায় মানব-মানবীর রূপক প্রেমের প্রকাশ, অন্য ভাগে পাওয়া যাবে, না পাওয়ার টানাপড়েন ও বিচ্ছেদ আনন্দের ভেতর দিয়ে নস্টালজিয়ায় আন্দোলিত হওয়ার নানা সুর। গ্রন্থটির কবিতা গুলি সহজ, সুন্দর এবং সুখপাঠ্য। আশা করছি পাঠকের কাছে গ্রন্থটি সমাদৃত হবে।

কবি জীবনের আত্মপ্রকাশ
প্রবহমান বংশী নদীর তীরে ধামরাই, ঐতিহ্যবাহী রথখোলার পাশে কায়েদ পাড়ায় জন্ম পূর্নিয়া সামিয়ার। এক অসাম্প্রদায়িক পরিবেশে বেড়ে উঠেছেন তিনি। ধামরাই তেই স্কুল-কলেজ শেষ করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ থেকে তিনি স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেছেন। শিক্ষক পিতা-মাতার উদার পরিবেশে বড় হয়েছেন তিনি। “হলদে রোদ ও মেয়েটা” কবিতার গ্রন্থটির মধ্য দিয়েই তার কবি জীবনের আত্মপ্রকাশ।