শরীয়তপুরবাসীর রাস্তার জন্য দেড় হাজার কোটি টাকার নতুন প্রকল্প

পদ্মা সেতুর সুফল যাতে শরীয়তপুরবাসী পান সেজন্য এই সেতুর সঙ্গে বিদ্যমান সড়কের সংযোগ তৈরি এবং সড়কটির উন্নয়নে এক হাজার ৬৮২ কোটি ৫৪ লাখ ৯৭ হাজার টাকার একটি প্রকল্প নেওয়া হয়েছে।

‘শরীয়তপুর-জাজিরা-নাওডোবা (পদ্মা ব্রিজ অ্যাপ্রোচ) সড়ক উন্নয়ন’ শীর্ষক এই প্রকল্প চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য মঙ্গলবার অনুষ্ঠেয় একনেক সভায় তোলা হতে পারে বলে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. নূরুল আমিন জানিয়েছেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে নেওয়া এ প্রকল্প ২০২২ সালের জুনের মধ্যে বাস্তবায়ন করবে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর। পুরো অর্থই সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে যোগান দেওয়া হবে।

প্রকল্প প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, বর্তমানে শরীয়তপুর জেলার বাসিন্দাদের কাওড়াকান্দি (কাঁঠালবাড়ি) ফেরিঘাট হয়ে ঢাকাসহ সারা দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হয়। বর্তমানে পদ্মাসেতু বহুমুখী নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় জাজিরা প্রান্তে একটি সংযোগ সড়ক নির্মিত হচ্ছে।

ওই সংযোগ সড়কের সঙ্গে শরীয়তপুরের সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন করতে হলে জাজিরা থেকে নাওডোবা পর্যন্ত নতুন করে দুই কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ করতে হবে। মূলত নতুন এই সড়ক নির্মাণের জন্যই এই প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে।

প্রস্তাবনায় আরও বলা হয়, বর্তমানে শরীয়তপুর- জাজিরা-কাওড়াকান্দি জেলা সড়কের মাধ্যমে ওই এলাকার মানুষ যোগাযোগ করে। প্রায় ২৯ কিলোমিটারের ওই সড়কটির প্রস্থ কোথাও ৩ দশমিক ৩ মিটার আবার কোথাও ৫ দশমিক ৫ মিটার। নতুন এই প্রকল্পটির মাধ্যমে পুরো সড়কটি ৭ দশমিক ৩ মিটারে উন্নীত করা হবে।

বর্তমানে ওই সড়কের ওপর দিয়ে বছরে গড়ে প্রায় ২ হাজার ৪৫৫টি ভারী যানবাহন এবং ৯ হাজার ৫২২টি হাল্কাসহ ১১ হাজার ৯৭৭টি যানবাহন চলাচল করে।

পদ্মাসেতুর ওপর দিয়ে যান চলাচল শুরু হলে ওই সব রাস্তায় যান চলাচল বেড়ে যাবে বলে সড়কটির প্রস্থ বৃদ্ধি করার এই প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে।

আগামী বছর জুনের পদ্মা সেতুর কাজ শেষ হবে বলে আশা করছে সরকার।

জাফর/এআর